অনলাইন ইনকাম

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে যেভাবে অনলাইন থেকে আয় করবেন

এফিলিয়েট মার্কেটিং ( Affiliate Marketing) কী?

এফিলিয়েট মার্কেটিং জানার আগে মার্কেটিং বিষয় টা ক্লিয়ার হওয়ার দরকার। মার্কেটিং হচ্ছে কোন প্রোডাক্ট কে পরিচয় করে দেওয়া।কোন প্রোডাক্টকে পরিচয় করাতে হয় তাহলে এই প্রোডাক্টকে কে প্রমোশন করতে হয়। এর জন্য ভাল উপায় হচ্ছে পণ্যর পরিচিত তুলে ধরা বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। এফিলিয়েট মার্কেটিং ঠিক এই কাজটাই করে। তাহলে এফিলিয়েট মানে কি দাড়াচ্ছে??? এফিলিয়েট মানে হচ্ছে পন্যর প্রমোশন করা। আর এই পণ্যর প্রমোশন করার মাধ্যমে আপনি আয় করতে পারেন। ফিজিক্যাল products সেল করে আয় করতে পারেন। আর এই এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে হলে অবশ্যই এক্সাপার্ট হতে হবে। পন্য কে সঠিক পরিচিত করা এটা মার্কেটিং করা। মূল কথায় প্রচুর এক্সপার্ট হতে হবে।

মুলত প্রোডাক্ট এর উপর ভাল ধারণা, ইংলিশ কমিউনিকেশন স্কিল ও কাস্টমারদের কনভিন্স করার ক্ষমতা থাকলেই আপনি একজন সফল এফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে উঠতে পারবেন।

বর্তমানে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য কিছু জনপ্রিয় প্লাটফর্ম হলো

  • Amazon
  • Crack Revenue
  • Max Bounty
  • adworkmedia
  • clickbank
  • themeforest
  • namecheap ( domain & hosting provider)

এফিলিয়েট মার্কেটিং এ গুরুত্বপূর্ণ তিনটি বিষয়

  • সময় পর্যাপ্ত সময় না দিলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে সফল হওয়া সম্ভবপর হয়না। কেননা, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং একটি মাল্টি বিলিয়ন ইন্ডাস্ট্রি। একদিকে প্রতিযোগীতা অন্যদিকে প্রযুক্তির আপডেট-উভয় মিলে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য পর্যাপ্ত সময় দেয়া অতীব প্রয়োজন।
  • কৌশল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে অনেক বেশি কৌশলী (strategist) হতে হবে। আপনি যত বেশি কৌশলী হবেন, আপনার অফার প্রোমোট করার জন্য নিত্যনতুন কৌশল বের করতে পারবেন প্রতিনিয়ত।
  • বিনিয়োগ অনেক সময় নির্দিষ্ট পরিমান ‍বিনিয়োগের অভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে সফলতা আসতে দেরি হয়। আপনি শুধু ফ্রি মেথডে কাজ করে আউটপুট আনতে অনেক বেশি সময় ও শ্রম দিতে হবে কিছু কিছু নতুনদের কাছে যা একেবারেই অসাধ্য।

এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য আপনার যে সব বিষয় গুলোতে এক্সপার্ট হতে হবে

জেনে নিন
  • কীওয়ার্ড রিসার্চ এবং নিশ্ নির্বাচন
  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও)
  • ওয়েব সাইট তৈরির যাবতীয় কাজ.
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (বিশেষ করে, ফেইসবুক মার্কেটিং)
  • গুগল এ্যাডওয়ার্ডস্
  • ই-মেইল কালেকশন (লিস্ট বিল্ডিং) এবং ইমেইল মার্কেটিং
  • লিংক বিল্ডিং প্রসেস
  • ট্র্যাফিক জেনারেশন এর নানাবিধ উপায়
  • কন্টেন্ট অপটিমাজেশন ইত্যাদি

এফিলিয়েট মার্কেটিং এর নানাবিধ অসুবিধা সমূহ

অনেক অনেক সুবিধার পাশাপাশি এই এফিলিয়েট মার্কেটিং পেশায় অনেক অসুবিধাও রয়েছে

  1. ফ্রিল্যান্সিংয়ে শুরুর দিকেই সবাই বিনিয়োগ করতে আগ্রহী হয় না।
  2. জীবনে গার্লফ্রেন্ড কিংবা বয়ফ্রেন্ড-এর জন্য অনেক রিস্ক নিলেও এই ইন্ডাস্ট্রির রিস্কটা অনেকে নিতে চায় না।
  3. ইনকামের জন্য একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করা বিরক্তিকর মনে হয়। অনেকে এসব ফাউ কাজ মনে করে আশা ছেড়ে দেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button